বিশ্বের প্রথম সফল বিমান

wright brothers first flight

১৯০৩ সালে কিটি হকের (Kitty Hawk) কাছে নর্থ ক্যারোলিনায় (North Carolina) ওরভিল (Orville) ও উইলবার রাইট (Wilbur Wright) ইতিহাসের প্রথম স্ব-চালিত বিমান উড্ডয়ন করতে সক্ষম হন। যা উদ্বোধনী উড্ডয়নে ১২ সেকেন্ড উড়ে ১২০ ফিট অতিক্রম করে ছিল।

অরভিল ও উইলবার ডেয়টন, ওহায়ওতে (Dayton, Ohio) বড় হওয়া কালীন সময়ে (১৮৯০ সালে) জার্মান প্রকৌশলী Otto Lilienthal-এর ‘গ্লাইডার ফ্লাইট’-এর (ইঞ্জিনবিহীন বিশেষ পাখা ব্যবহার করে আকাশে স্বল্প সময়ের জন্য ভাসমান থাকা) ব্যপারে জানার পর তাদের মনে আকাশে উড়ার ইচ্ছে তৈরী হয়। তাদের বড় ভাইদের মতো তারা কলেজ করেন নি। তবে প্রযুক্তি বা যন্ত্রপাতি বিষয়ক দক্ষতায় তারা অসাধারণ পারদর্শী ছিল। এবং যান্ত্রিক নকশা তৈরীতেও তাদের বাস্তবসম্মত বুদ্ধি ছিল তুখোর। ১৮৯২ সালে তারা প্রিন্টিং প্রেস তৈরী করে এবং বাইসাইকেল বিক্রী ও মেরামতের দোকান খোলে। শীঘ্রই তারা তাদের নিজেদের বাইসাইকেল তৈরী করা শুরু করে। অভিজ্ঞতা ও নানা ধরনের ব্যবসায় দ্বারা অর্জিত মুনাফা তাদেরকে বিশ্বের প্রথম বিমান তৈরীর স্বপ্নে সক্রিয় হওয়ার সুযোগ প্রদান করে।

রাইট ব্রাদারসরা বিমান তৈরীর জন্য অন্য প্রকৌশলীদের প্রচেষ্টার বিস্তারিত গবেষণা করে এবং ইউ.এস আবহাওয়া ব্যুরোতে গ্লাইডার পরীক্ষার জন্য একটি উপযুক্ত জায়গা জানার জন্য চিঠি লেখে।

কিটি হকে তারা স্থায়ীভাবে থাকা শুরু করে, যেখানে সমান্তরাল বাতাস ও বালুময় স্থানের সুবিধা পায় যা গ্লাইডার উড়ার ও সহজে মাটিতে নামার জন্য উপযুক্ত। ১৯০০ সালে তাদের নকশা করা প্রথম গ্লাইডারটি পরীক্ষায় খুব হতাশাজনক ফল করে। কিন্তু ১৯০১ সালের নতুন নকশা করা গ্লাইডার আগের তুলনায় ভালো সফলতা অর্জন করে। পরর্বতীতে সে বছর তারা একটি wind tunnel ( বিশেষ সুড়ঙ্গ যেখানে কৃত্তিমভাবে বাতাস প্রবাহ করা যায়) তৈরী করে, যেখানে তারা প্রায় ২০০-র বেশী পাখা ও বিভিন্ন বিমানের মূল দেহের ক্ষ্রুদ্রাকৃতির মডেল পরীক্ষা করে। তাদের এ পরিশ্রম সার্থক হয়। ১০৯২ সালের গ্লাইডার দিয়ে Kill Devils Hills-এ তারা শতাধিক সফল ফ্লাইট করতে সক্ষম হয়। গ্লাইডারের স্ট্যায়ারিং সিসটেমের জন্য তারা গ্লাইডারটিতে এক ধরনের রাডার ব্যবহার করে, যা গ্লাইডারটিকে নিয়ন্ত্রনে রাখতে সহায়তা করে। এবার তারা যন্ত্রচালীত ফ্লাইটের জন্য তৈরী।

Dayton-এ তারা মেকানিস্ট চার্লস টেইলরের (Charles Taylor) সাহায্যে ১২-হর্স পাওয়ারের কমবাস্টিন ইঞ্জিন এবং নতুন একটি বিমান তৈরী করে। ১৯০৩ সালে তারা সেই বিমান নিয়ে আরও কিছু পরীক্ষা করে। ডিসেম্বরের ১৪ তারিখ ওরভিল প্রথম সেই ইঞ্জিনচালীত বিমানটি উড়ানোর চেষ্টা করে। কিন্তু মাটি ছাড়ার আগেই ইঞ্জিনটি থেমে যায় এবং বিমান ক্ষতিগ্রস্থ হয়। তিন দিন ব্যয় করে তারা তা ঠিক করে। তারপর ১০:৩৫ সকাল ১৭ ডিসেম্বরে, ৫ জন সাক্ষীর সামনে বিমানটি প্রথম সফলভাবে উড়াতে সক্ষম হয়। সেদিন আরও তিনবার উড়ানো হয়। প্রথম চেষ্টায় বিমানটি ১২ সেকেন্ডে ১২০ ফিট অতিক্রম করে আর সর্বশেষ চেষ্টায় ৫৯ সেকেন্ডে ৮৫২ ফিট।

রাইট ব্রাদারস-এর (Wright Brothers) ১৯০৩ সালের ঐতিহাসিক বিমানটি National Air and Space Museum-এ (Washington, D.C) আছে।