হাসিমুখে অভিনব প্রতিবাদ মুসলিম তরুণীর

ঘৃণার বিরুদ্ধে উদার মনোভাবের পরিচয় দিয়ে, অভিনব প্রতিবাদের মাধ্যমে, দারুণভাবে প্রসংশিত হচ্ছেন সামিয়া ইসমাইল। ওয়াশিংটন ডিসিতে মুসলিমদের বিরুদ্ধে ঘৃণা ছড়াতে সমাবেশ করা একদল ব্যক্তির সামনে হাসিমুখে ছবি তুলার পর, সে ছবি ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়েছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ইনস্টাগ্রাম ও টুইটারে। শিরোনাম হয়েছেন বিশ্বগণমাধ্যমের। সেই সাথে উদার দৃষ্টিভঙ্গির জন্য দারুণভাবে প্রসংশিত হচ্ছেন তিনি।

উত্তর আমেরিকার একটি ইসলামি সম্মেলনে যোগ দিতে যাওয়ার সময় সামিয়া ইসমাইল এই ঘটনার মুখোমুখি হন। একদল লোক সম্মেলনকেন্দ্রের সামনে মুসলিম ধর্মবিশ্বাসের বিরুদ্ধে কথা বলতে সমবেত হয়েছিল। তারা জঘন্য ভাষার প্লাকার্ড বহন ও আক্রমনাত্বক বক্তব্য দিলেও সামিয়া ইসমাইল খুবই অভিনব উপায়ে তার প্রতিবাদ করার ভাষা খুঁজে নেন। তিনি তার বন্ধু জামিলাকে বলেন তাদের সামনে হাসিমুখে একটি ছবি তুলে দেওয়ার জন্য।

এ প্রসঙ্গে সামিয়া ইসমাইল বলেন, তিনি প্রথমে লোকগুলোর সামনে গিয়ে দাড়ানোর জন্য কর্মরত পুলিশ অফিসারের অনুমতি চাইলে, তিনি না বলে ফিরিয়ে দেন। তিনি বলেন, সেই পরিস্থিতিতে হাসতে খুব কষ্ট হয়েছিল কারণ তারা সবাই সরাসরি আমাকে উদ্দেশ্য করেই কটুক্তি করছিল।

তবে সামিয়া ইসমাইল ছবিটি এতটা সাড়া পাবে কখনো ভাবেননি। এমনকি যখন তার পোস্টটিতে তিন হাজারের মত লাইক হয়ে যায় তখন তার মা তাকে সাবধান থাকতে বলেন, কারণ আশেপাশের সবাই যে ভালো মানুষ তা নয়। তাছাড়া সামিয়ার বন্ধু এবং পরিবারের সদস্যরা এর আগে বেশ কয়েকবার বৈষম্যমূলক আচরণের শিকার হয়েছিলেন। তবে সামিয়ার জন্য বিষয়টা এখনো দারুণ, কারণ এখনো পর্যন্ত এমন কোন হুমকি তিনি পাননি।

যা-ই হোক, সামিয়া ইসমাইল তার ছবির ক্যাপশনে লিখেছেন হাদীসের একটি উদ্ধৃতি “দয়া বিশ্বাসের অংশ, সে দয়া করেনা সে বিশ্বাসীদের অন্তর্ভুক্ত নয়”।

উৎস: চেঞ্জ টিভি